কম্পিউটারের প্রথম প্রজন্মের কিছু কম্পিউটার

কম্পিউটারের প্রথম প্রজন্মের কিছু কম্পিউটারমার্ক-১

কম্পিউটার (Mark-1 Computer)
পৃথিবীর প্রথম কম্পিউটার হচ্ছে মার্ক-১ এটি যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিতের অধ্যাপক হাওয়ার্ড এইচ, আইকেন, IBM এর চারজন প্রকোশলীর সহযােগিতায় তৈরি করেন প্রথম স্বয়ংক্রিয় সাধারণ ইলেকট্রোমেকানিক্যাল ডিজিটাল কম্পিউটার Mark-1, ১৯৪৪ সালে। তাদের এই গবেষণা চলে ১৯৩৭ থেকে ১৯৪৪ সাল পর্যন্ত। এটি ছিল ইলেকট্রো ম্যাকনিক্যাল যন্ত্র। এর আয়তনের হিসেবে এটি ছিল লম্বায় প্রায় ৫১ ফুট, উচ্চতায় ছিল ৪৮ ফুট, ওজন ছিল প্রায় ৫ টন। এই কম্পিউটারে প্রায় ৩ হাজার ইলেকট্রিক সুইচ ব্যবহার করা হয়েছিল। এতে প্রায় ৭ লক্ষাধিক যন্ত্রপাতির জন্য প্রায় ৫০০ মাইল তার ব্যবহার হয়েছিল। এর জীবন কাল ছিল প্রায় ১৫ বছর। মার্ক-১ এ গণিতের পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ করা যেত। এগুলাে হল- যােগ, বিয়ােগ, গুণ, ভাগ ও টেবিল বা সারণী সংশ্লিষ্ট (Table Reference) । মার্ক-১ দ্বারা দুটি সংখ্যার যােগ ও গুণ করতে সময় লাগত যথাক্রমে ০.৩ ও ৪.৫ সেকেন্ড সময় লাগত। বর্তমানে এটি হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান জাদুঘরে আছে।

MARK-1 Computer

এ.বি.সি, কম্পিউটার (The ABC Computer)

ABC Computer নামটি শুনতে কেমন কেমন লাগে তাই না! ABC Computer এর পূর্ণরূপ হচ্ছে Atanasoft Berry Computer, এটি যুক্তরাষ্ট্রের আইওয়া স্টেট কলেজের অধ্যাপক জন এটানাসফ (John Atanasoft) এবং তার ছাত্র ক্লিফ বেরি (Cliff Berry) যৌথভাবে অ্যাকুয়াস টিউব ব্যবহার করে তৈরি করেন একটি ইলেকট্রিক গণনাকারী যন্ত্র। তারা এই গণনাকারী যন্ত্রের নাম দিলেন ABC Computer, তাদের নাম অনুসারেই এই গণনাকারী যন্ত্রের নাম রাখা হল ABC Computer . তারা এটি তৈরি করেন ১৯৪২ সালে। যার কাজ শুরু হয়েছিল ১৯৩৯ সালে। এতে তথ্য জমা রাখার জন্য ক্যাপাসিটর ও ইন্টারন্যাল লজিকের (Internal Logic) জন্য ৪৫টি ভ্যাকুয়াম টিউব ব্যবহার করা হয়েছিল।

এ.বি.সি, কম্পিউটার (The ABC Computer)

ইনিয়াক কম্পিউটার (The ENIAC)

ENIAC একটি সংক্ষিপ্ত নাম। যার পুরো নাম হলো Electronic Numerical Integrator and Calculator. এটির গবেষণা কাল শুরু ১৯৪৩ সাল থেকে, শেষ হয় ১৯৪৬ সালে। ১৯৪৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডঃ জন মউসলি এবং তার ছাত্র প্রেসপার একার্ড মিলে তৈরি করেন প্রথম প্রজন্মের ডিজিটাল কম্পিউটার ENIAC. এটি তৈরিতে প্রায় ৩০ হাজার ভ্যাকুয়াম টিউব ব্যবহার করা হয়েছিল। এর ফলে এর ওজন হয় প্রায় ৩০ টন ও এটি চালাতে বিদ্যুত খরচ হত ১৩০ থেকে ১৪০ কিলােওয়াট। এতে প্রতিটি সেকেন্ডে ৫০০০টি যোগ ও ৩৫৭টি গুণ করা যেত। তবে দুঃখের বিষয় হচ্ছে এটিতে প্রােগ্রাম সংরক্ষণের কোন ব্যবস্থা ছিল না। ইনিয়াক কম্পিউটারের জন্য জায়গা দরকার ছিল প্রায় ১ হাজার বর্গফুটের মতো। যার কারণে এটি স্থানান্তিরিত করা যেত না। এটি প্রথম ব্যবহার করা হয়েছিল দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে সামরিক কাজে।

ENIAC Computer

এডভ্যাক কম্পিউটার (The EDVAC Computer)

EDVAC একটি সংক্ষিপ্ত নাম। যার পুরো নাম হলো electronic Discrete Variable Automatic Computer. এর কাজ শুরু হয় ১৯৪৬সালে, আর কাজ শেষ হয় ১৯৫২ তে। এই কম্পিউটারের সবচেয়ে বড় সমস্যা হল এটিতে প্রােগ্রাম সংরক্ষণের ব্যবস্থা না থাকায় এটির গতি ও কাজের ক্ষমতা ছিল খুবই সীমিত। পরবর্তীতে হাঙ্গেরীয় বংশোদ্ভূত আমেরিকান গণিতবিদ ডঃ জন ভন নিউম্যান (Dr. John Von Neuman) ENIAC এর সমস্যা সমাধানে একটি যন্ত্র তৈরির পরিকল্পনা হাতে নেন। তার পরিকল্পনাতে ছিল, প্রােগ্রাম সংরক্ষণ ও এ থেকে পুনঃ চালনা করা; দশমিকের পরিবর্তে বাইনারি সংখ্যার ব্যবহার; কম্পিউটারের ভিতরে ডেটা সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা। তার এই প্রস্তাবকে বলা হয় সংরক্ষিত প্রােগ্রাম (Stored Program). তার এই প্রস্তাবের উপর ভিত্তি করে US Army- Electronic Discrete Variable Automatic Computer বা EDVAC তৈরি করে। ডঃ জন ভন নিউম্যান কে আধুনিক কম্পিউটারের জনক বলা হয়।

এডভ্যাক কম্পিউটার (The EDVAC Computer)

ইউনিভ্যাক কম্পিউটার (The UNIVAC Computer)

UNIVAC প্রথম প্রজন্মের ডিজিটাল কম্পিউটারগুলাের অন্যতম। UNIVAC এর পূর্ণরূপ হল Universal Automatic computer. ইউনিভ্যাক কম্পিউটার হল বিশ্বের প্রথম বানিজ্যিক ভাবে নির্মিত ইলেকট্রনিক কম্পিউটার। এটি তৈরিতে প্রায় ৫০০০ ভ্যাকুয়াম টিউব ব্যবহৃত হয়েছিল। এর মূল বৈশিষ্ট্য হল, প্রতিসেকেন্ডে ৮৩৩০ বার যােগ ও ৫৫৫ বার গুণ করে পারত; ENIAC এর তুলনায় কম বিদ্যুত খরচ হত, গতি ছিল তুলনামূলকভাবে বেশি। যার ফলে আমেরিকার জেনারেল ইলেকট্রনিক কর্পোরেশন UNIVAC কম্পিউটার ১৯৫১ সালে UNIVAC-1 নামে বানিজ্যিকভাবে বাজারজাত করে।পরবর্তীতে আইবিএম কোম্পানী ১৯৫৩ সালে উক্ত কম্পিউটার IBM-650 মডেল হিসেবে বাজারজাত করে।

ইউনিভ্যাক কম্পিউটার (The UNIVAC Computer)

এই ভাবেই এক এক করে সময়ের বিবর্তনে এগুতে থাকে কম্পিউটার সমূহ। মূলত এই কম্পিউটারগুলােই হল বর্তমান কম্পিউটারগুলাের আদি পিতা-মাতা। এগুলাে থেকেই তৈরি করা হয়েছে আজকের বর্তমান কম্পিউটারগুলাে। কত পরিশ্রম, কত সাধনা, কত সময় ব্যয় করা হয়েছে আজকের এই কম্পিউটার তৈরি করতে; ভাবতে খুবই আশ্চার্য লাগে তাই না????

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *